আশুগঞ্জে বিদ্যুৎ কেন্দ্রে প্রকৌশলীকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় ৩ শ্রমিক লীগ নেতা বরখাস্ত:পরিস্থিতি উত্তপ্ত

0 0

বিশেষ প্রতিনিধি॥ ॥ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে হত্যার হুমকি ও চার প্রকৌশলীকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে শ্রমিক লীগ সমর্থিত এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন সভাপতিসহ তিনজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।এরা হলেন এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সভাপতি ও তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মেইনটেনেন্স মেকানিক মোজাম্মেল হক, ক্রেন অপারেটর ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহরম আলী এবং সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম।

আশুগঞ্জ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল আলম জানান, চাকরি বিধির ৪০(১) ধারা মোতাবেক রোববার সকালে ৩ জনকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বিদ্যুত্ কেন্দ্রের সার্বিক পরিস্থিতি এখনো উত্তপ্ত। এ ঘটনায় থানায় মামলা করেও আতংকে দিন কাটছে প্রকৌশলীদের। অন্যদিকে বিদ্যুত্ কেন্দ্রের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মাঝে বিরাজ করছে চাপা ক্ষোভ ও অসন্তোষ। এদিকে থানায় মামলা করার প্রতিবাদে প্রতিদিনই বিদ্যুত্ কেন্দ্রের অভ্যন্তরে মিছিল ও মিটিং করেছে এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা। শনিবার সকালে বিদ্যুত্ শ্রমিক লীগের এক সমাবেশে অবিলম্বে মামলা প্রত্যাহার না করলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

শনিবার সকালে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের শ্রমিক লীগ সমর্থিত এমপ্লয়ীজ ইউনিয়নের ৩ নেতার বিরুদ্বে মামলা করার প্রতিবাদে ইউনিয়নের নিজস্ব কার্যালয়ে স্থানীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগ নেতাকর্মিদের সাথে বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় নেতাদের এক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের সাধারন সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন মিয়া।বিদ্যু কেন্দ্র শ্রমিক কর্মচারি ইউনিয়নের সহ সভাপতি মো. দৌলতুজ্জামান ভূইয়ার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন পিজিসিবি শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি মো. আব্দুল হাই, সাধারন সম্পাদক মো. নূরুল আমিন, জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগ ঘোড়াশাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র শাখার সাধারন সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম, বিদ্যুৎ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ প্রমূখ।

আশুগঞ্জ থানার ওসি আবু জাফর জানান, মামলার আসামিরা পালিয়ে গেছে। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যহত আছে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares