টিপাইমুখ বাঁধ ইস্যু ব্রিটেনের পার্লামেন্টে তোলার উদ্যোগ নিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা

0 0

টিপাইমুখ বাঁধ ইস্যু ব্রিটেনের হাউস অব কমন্সে উত্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। এ জন্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম এরই মধ্যে শুরু করেছেন তাঁরা। গতকাল শনিবার সিলেটের জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে ব্রিটেনের ভয়েস ফর জাস্টিস ওয়ার্ল্ড ফোরামের আহ্বায়ক ড. হাসনাত মাহমুদ হোসেন এ কথা জানান।


ড. হাসনাত বলেন, ‘প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ বিষয়ে বিশ্ব জনমত গঠনের জন্য কাজ করছেন। ব্রিটেনের নিয়ম অনুযায়ী কোনো বিষয়ে এক লাখ মানুষ আপত্তি তুললে ওই বিষয়ে পার্লামেন্টে আলোচনা করতে সরকার বাধ্য। আমরা এ সুযোগটি কাজে লাগাতে ব্রিটেনে বসবাসরত বাংলাদেশিদের স্বাক্ষর সংগ্রহ শুরু করেছি। এরই মধ্যে ৪০ হাজার স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হয়েছে। শিগগিরই বাকি স্বাক্ষর সংগ্রহ করতে পারব বলে আশা করছি।’


ড. হাসনাত জানান, এরই মধ্যে ১২ জন ব্রিটিশ এমপি এ কার্যক্রমে সমর্থন দিয়েছেন। টিপাইমুখ বাঁধ হলে বাংলাদেশে পরিবেশগত যে বিপর্যয় হবে এবং এটা যে আন্তর্জাতিক নদী আইনের পরিপন্থী, তা হাউস অব কমন্সে তুলে ধরে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা কামনা করা হবে।


দুর্নীতি প্রতিরোধ আন্দোলন সিলেট নামের একটি সংগঠন গতকাল ‘টিপাইমুখ বাঁধ : সম্ভাব্য বিরূপ প্রতিক্রিয়া’ শীর্ষক ওই আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে প্রধান বক্তা ছিলেন ড. হাসনাত মাহমুদ হোসেন।


দুর্নীতি প্রতিরোধ আন্দোলন সিলেটের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মাসউদ খানের সভাপতিত্বে সভায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের প্রধান ড. সাজেদুল করিম।


সভায় টিপাইমুখ বাঁধের ভয়াবহতা তুলে ধরে বলা হয়, এ বাঁধ হলে শুধু সিলেট অঞ্চল নয়, দেশের ৩ ভাগের ১ ভাগ এলাকা মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাই এ ইস্যুতে দল-মতের ঊর্ধ্বে উঠে দেশের স্বার্থে সবাইকে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়।


মূল প্রবন্ধে বলা হয়, টিপাইমুখে বাঁধ হলে দেশের নদীগুলোর পানির স্তর এবং নদীতীরবর্তী ভূগর্ভস্থ পানির স্তর আশঙ্কাজনক হারে হ্রাস পাবে। বিশ্বের বৃহত্তম মিঠা পানির উৎস মেঘনা ও এর শাখা-প্রশাখা হারিয়ে যাবে। টিপাইমুখ বাঁধের অবস্থান বিশ্বের অন্যতম প্রধান ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকা ইউরেশিয়ান-ইন্ডিয়ান এবং মিয়ানমার টেকটোনিক প্লেটের মধ্যে উল্লেখ করে বলা হয়, এ এলাকায় গত ১১০ বছরে ২০টি বড় ভূমিকম্প সংঘটিত হয়েছে। ভূমিকম্পে টিপাইমুখ বাঁধ ভেঙে গেলে প্রায় পাঁচ কোটি বাংলাদেশির সলিলসমাধি হবে।


অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন ভয়েস অব জাস্টিসের নেতা আবদুল লতিফ, ভয়েস অব জাস্টিসের বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের আহ্বায়ক লুৎফুর রহমান চৌধুরী, জাতীয় পার্টির সিলেট জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদ, সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আতাউল হক লস্কর প্রমুখ।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares