সোমবার নবীনগর পৌরসভার নির্বাচন

0 0

 

 

 

সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পৌরসভার নির্বাচন। পৌরসভা গঠিত হওয়ার ১৫ বছর পর এটাই হচ্ছে প্রথম নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে উৎসব আমেজ বিরাজ করছে গোটা নির্বাচনী এলাকায়। নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে লড়ছেন ১শ জন প্রার্থী। এর মধ্যে মেয়র পদে ১৫ জন, কাউন্সিলর পদে ৭৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১১ জন প্রার্থী কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
ইতিমধ্যেই নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে উপজেলা নির্বাচন অফিস। নয়টি ওয়ার্ডের ১১টি কেন্দ্রের ৯২টি বুথে চলবে ভোট গ্রহন হবে। ১১টি কেন্দ্রের মধ্যে পাঁচটি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র গুলো হচ্ছে ১,৩,৪,৫ এবং ৮ নং কেন্দ্র। শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহনের জন্য পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিপি সহ আইনশৃংখলা বাহিনীর ২৫০ জন সদস্যকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।
নির্বাচনে মেয়র পদে ১৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও ইতিমধ্যে ১জন প্রার্থী নির্বাচন থেকে সরে দাড়িয়েছেন। নির্বাচনে একক মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করতে পারেনি আওয়ামীলীগ ও বিএনপি। তবে আওয়ামীলীগ গোপনে তাদের মেয়র প্রার্থীর জন্য কাজ করছে।
মেয়র পদে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থীরা হচ্ছেন, অ্যাডভোকেট শিব শংকর দাস (দোয়াত-কলম), শুক্কুর খান (মোটর সাইকেল), আব্দুর রহমান (কাপ-পিরিচ) ও বশির আহম্মেদ পলাশ (হাঁস)। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা হলেন, মাঈন উদ্দিন আহম্মেদ (জাহাজ), ওবায়দুল হক লিটন (ব্যাটারী), শাহ হাসান আহম্মেদ (টেবিল), শাহনুর খান আলমগীর (তালা), রফিকুল ইসলাম দেনু (প্রজাপতি) ও শাহাবুদ্দিন (হেলিকপ্টার)। জামাত সমর্থিত প্রার্থী গোলাম ফারুক (আনারস), নির্দলীয় প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা মমিনুল হক (চশমা), ঈদন খান (টাইপ রাইটার), আবুল হোসেন মৃধা (টেলিফোন)। বিনপির বহিস্কৃত নেতা ও সাবেক পৌর প্রশাসক মোঃ মলাই মিয়া (মাইক) প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। ১৫জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে গত শনিবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়ানোর ঘোষনা দেন নির্দলীয় প্রার্থী মোঃ আবুল হুসেন মৃধা (টেলিফোন)। তিনি বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোহাম্মদ মাইনুদ্দিন মাইনুকে ( জাহাজ) সমর্থন দেন।
কাউন্সিল পদে লড়ছেন ৭৪ জন প্রার্থী। এর মধ্যে ১নং ওয়ার্ডে আবু হানিফ (ফুটবল), মোঃ মহসিন (চাঁদ), মোঃ কামাল উদ্দিন (বালতি), মোঃ সিরাজুল ইসলাম (হরিণ), মোঃ জাহিদুল ইসলাম (মোরগ)।
২নং ওয়ার্ডে মোঃ কবির হোসেন (ফুটবল), মোঃ দোলোয়ার হোসেন (নোঙ্গর), শেখ সাকিম (বালতি), আসলাম মিয়া (মোরগ), কামাল মিয়া (চাঁদ), নূর মোহাম্মদ (ঘুড়ি), শেখ রফিকুল ইসলাম (আপেল), স্বপ্না ঘোষ (তবলা), আবদুল আওয়াল ভুইয়া (হরিণ), রঞ্জন বনিক (ক্যামেরা), মোঃ আবদুল হালিম মিন্টু (গিটার), মোঃ ইকবাল হোসেন (লাঠিম)।
৩ নং ওয়ার্ডে মোঃ জহর মিয়া (ঘুড়ি), মোঃ দুলাল মিয়া (মেরাগ), মোঃ শরিফ উদ্দিন ফারুক (ক্যামেরা), মোঃ ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ (ফুটবল), মোঃ দ্বীন ইসলাম (চাঁদ), মোঃ হারুন অর রশিদ হিরু (বালতি), মোঃ জসিম উদ্দিন (তবলা), শফিকুল ইসলাম (আপেল), মোঃ হিরন মিয়া (হরিণ)।
৪নং ওয়ার্ডে জগদীশ চন্দ্র বর্মন (তবলা), মোঃ শহীদুল ইসলাম (হরিণ), আবদুল কুদ্দুস (চাঁদ), আবু ছায়েদ (নোঙ্গর), মনিরুজ্জামান (মোরগ), মোঃ আবুল কাশেম চাম্পা (লাঠিম), হাবিবুর রহমান (ফুটবল), মোঃ রফিকুল ইসলাম (গিটার), সিতানাথ সুত্রধর (বালতি), তারেক সিদ্দিক সোহাগ (আপেল), বিশ্ব সাহা রানা (ক্যামেরা), সাধন সাহা জয় (ঘুড়ি)। ৫ নং ওয়ার্ডে মোঃ আবুল মতিন (ঘুড়ি), আশ্রাফ সিদ্দিক রিপন (ফুটবল), আবুল বাশার বাদল (ক্যামেরা), মোঃ শফিকুল ইসলাম (মোরগ), মোঃ জালাল উদ্দিন মনির (চাঁদ)।
৬ নং ওয়ার্ডে  মোহাম্মদ রমজান আলী (ঘুড়ি), মোঃ সিদ্দিক মিয়া (ক্যামেরা), মামুন মিয়া (চাঁদ), আবদুর রাজ্জাক (ফুটবল), আবদুল হেকিম (হরিণ), মোঃ জাকির হোসেন (লাঠিম), গোলাম মোস্তফা (নোঙ্গর), মোঃ আবদুল কাদির (আপেল), মোহাম্মদ বাছিরুল আলম (টিগার), বাদিউল আলম (বালতি), আবদুল আজিজ (মোরগ)।
৭ নং ওয়ার্ডে আবু বাছির খন্দকার (হরিণ),  আবদুল আহাদ (ফুটবল), মোঃ আবুল বাশার (ঘুড়ি), মোঃ কবির হোসেন (মোরগ)।
৮নং ওয়ার্ডে কালী পদ ঋষি (হরিণ), কামাল উদ্দিন (মোরগ), নসু আল ভূইয়া (আপেল), নারায়ন চন্দ্র কর্মকার (নোঙ্গর), যদুনাথ ঋষি (ফুটবল)।
৯ নং ওয়ার্ডে জাবেদ ভূইয়া (আপেল), মোঃ মোকাদ্দুস (মেরাগ), মোঃ জসিম উদ্দিন (ফুটবল), জাহাঙ্গীর আলম (বালতি), মোঃ দুলাল মিয়া (হরিণ)  প্রতিদ্বন্দ্বিতা করাছেন।
সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আসনে ১ নং ওয়ার্ডে নিলুফা ইয়াসমিন (কলস), রাশিদা বেগম (টিউবওয়েল), নাজমা আক্তার (পদ্মফুল)।
২ নং ওয়ার্ডে শাহনাজ আক্তার কবিতা (পদ্মফুল), মোছাম্মৎ আইরিন আক্তার (পানপাতা), জুলেখা বেগম (কলস), কহিনুর বেগম (টিউবওয়েল)।
৩নং ওয়ার্ডে পিয়ারা বোগম (কলস), হোসনে আরা বেগম (টিউবয়েল), মোসাম্মৎ রেহেনা বেগম (পদ্মফুল), শিউলী বেগম (বই)।
পৌরসভার বিভিন্ন এলাকার ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ সমর্থিত অ্যাডভোকেট শিব শংকর দাস (দোয়াত-কলম), বশির আহম্মেদ পলাশ (হাঁস), বিএনপি সমর্থিত মাঈন উদ্দিন আহম্মেদ (জাহাজ) এবং নির্দলীয় প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা মমিনুল হক (চশমা) এর মধ্যে চর্তুমুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার হচ্ছে ৩০ হাজার ২৭০ জন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares