মহিলা কলেজ কেন্দ্রে বাউবি’র পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ‘সেন্টার ফি’র নামে অতিরিক্ত টাকা আদায়

0 0
প্রতিনিধি: বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাউবি) অধীনে অনুষ্ঠিত এইচএসসি প্রোগ্রাম পরীক্ষায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর মহিলা কলেজ কেন্দ্রে ‘সেন্টার ফি’র নাম করে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেআইনীভাবে জনপ্রতি ৬০০ (ছয়শত) টাকা করে আদায় করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার থেকে সারা দেশে এ পরীক্ষা শুরু হয়েছে।
কলেজের একাধিক সূত্রে জানা যায়, বাউবি’র এইচএসসি প্রোগ্রাম পরীক্ষায় নবীনগর মহিলা কলেজ কেন্দ্র থেকে এ বছর ১ম বর্ষে ৭৫জন ও ২য় বর্ষে ৯৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। কিন্তু অভিযোগ পাওয়া গেছে, কর্তৃপক্ষ সম্পূর্ণ অনৈতিকভাবে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ‘সেন্টার ফি’র কথা বলে জনপ্রতি ৬০০ টাকা করে আদায় করে।
নাম প্রকাশে ভীত একাধিক পরীক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন,‘৬০০ টাকা করে কর্তৃপক্ষ নিয়েছেন এটি সত্য। তবে এ নিয়ে লেখালেখি হলে, আমাদের পরীক্ষায় সমস্যা হবে।’
একটি বেসরকারি কলেজের অধ্যক্ষ নিয়াজুর রহমান বলেন,‘বাউবি’র অধীনে এই  পরীক্ষায় ‘সেন্টার ফি’র কথা বলে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোন ধরণের টাকা নেওয়া সম্পূর্ণ বেআইনী। কারণ কেন্দ্রের আনুষাঙ্গিক খরচ বাউবি কর্তৃপক্ষ প্রত্যেক পরীক্ষার্থী বাবদ ১২৫ টাকা হিসেব করে পুরো টাকা পরীক্ষার আগেই সেন্টারে পাঠিয়ে দেন।’
তবে টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করে ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা টিউটর, নবীনগর মহিলা কলেজের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ইমাম মাহিদ গত বছরও এভাবে টাকা নেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে বলেন,‘বিভিন্ন নন অফিসিয়াল খরচ চালাতে আমরা ‘সেন্টার ফি’ বাবদ এবছরও ৬০০ টাকা করে নিয়েছি, এটা সত্য। মূলত: এই টাকা পরীক্ষা চলাকালীন কেন্দ্রের প্রশাসনিক নানা খরচ সহ আনুষাঙ্গিক কেনাকাটায় ব্যায় করা হবে।’
নবীনগর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ও ওই কেন্দ্রর সমন্বয়ক কান্তি কুমার ভট্টাচার্য বলেন,‘টাকা নেওয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে কি কারণে এত টাকা নেওয়া হয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হবে।’
বাউবি’র পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. নাজনীন নেগার মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে বলেন,‘বাউবি’র এ পরীক্ষা নিয়ে কোন কেন্দ্র থেকে একটি টাকা নেওয়ারও কোন সুযোগ নেই। সুতরাং এ অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে, অবশ্যই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares