রবাস জীবনঃ–পান বিক্রেতাকে ধরে দিতে পারলে ২০০০ দিরহাম পুরস্কার?

0 0

পান বিক্রেতাকে ধরে দিতে পারলে ২০০০ দিরহাম পুরস্কার?

আমাদের দেশের প্রবাসী ভাইদের যেখানে সেখানে থু থু ফেলার একটা বদ অভ্যাস আছে। প্রবাসে পান খাওয়া নিষিদ্ধ। তারপরেও প্রবাসীরা পান খাওয়া থেকে বিরত নেই। বাসায় পান খেলে কেউ দেখে না। কিন্তু প্রবাসী ভাইয়েরা রাস্তায় পান খেতে বেশী পছন্দ করে। একটার পর একটা সিগারেট খায় আর পান চিবাতে চিবাতে খোশগল্পে মেতে উঠে। পানের পিচকিগুলো দেয়ালে লাগিয়ে দিয়ে রং করে দেয়। সুন্দর সুন্দর ডাস্টবিন গুলোর চারিদিকে পানের পিচকি দেখলে যে কারো মাথা খারাপ হবে। আমি প্রতিদিন সকালে অফিসে আসার সময় মিউনিসিপালিটির ক্লিনারদেরকে ডাস্টবিন ও দেয়ালগুলো পরিস্কার করতে দেখি। হয়ত ক্লিনারদের অভিযোগের কারনে দুবাই সরকার পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে “এখন থেকে কেউ পান খেলে তার শাস্তি হবে, জরিমানা হবে, আর পান বিক্রেতাকে ধরিয়ে দিতে পারলে পুরস্কিত করা হবে।

প্রবাসী ভাইদের কান্ড দেখুনঃ


দুবাই প্র্রবাসীদের বাসস্থান কেমন?

দুবাই শহরে এক একটি ৫/৬ তলা বিল্ডিং এ হাজারের বেশী প্রবাসী শ্রমিক বসবাস করে। একটি রুম একটি টয়লেট ও একটি রান্নাঘরের ভাড়া মাসে ৪০০০.০০ দিরহামের উপরে। ১ দিরহাম-২২.৪০ টাকা।

দুবাই শহরে বেশীর ভাগ প্রবাসী বাংলাদেশীর বেতন ২৫০০.০০ দিরহামের নীচে। প্রতি মাসে সিট ভাড়া ও দু বেলা ভাত খাওয়ার জন্য ৬৫০.০০ দিরহাম খরচ হয়। অন্যান্য খরচসহ বেতনের অর্ধেক টাকা খরচ হয়ে যায়। তাই বাধ্য হয়ে একটি রুমে ৮ থেকে ১০ জন থাকতে হয়। দুই ফিটের খাটে একজনের উপর আরেকজনকে থাকতে হয়। বেশী বেতনের কর্মচারীরা ও টাকা বাঁচানোর জন্য ৮-১০ জনের সাথে থাকে।

দুবাই শহর থেকে একটু দুরে বাসা ভাড়া কম। যাদের গাড়ি আছে ও ভাল বেতনের কর্মচারীরা সেই সমস্ত বিল্ডিং এ বউ বিয়ে বসবাস করছে। তাদের সন্তানদেরকে বিভিন্ন স্কুলে পড়াচ্ছে।

প্রবাসীদের প্রেসার নাকি বেশীঃ

দুর প্রবাসে থাকার কারনের প্রবাসীরা সব সময় টেনশনে থাকেন। পরিবারের জন্য দুশ্চিনতায় ভুগেন। পরিবারের কোন দুঃসংবাদে ভেঙ্গে পড়েন। উন্নত মানের খাবার খাওয়ার ফলে তাদের ওজন বেড়ে যায়। অতিরিক্ত গরমের কারনে বাসা থেকে বের হয় না। খাওয়ার পরপরই ঘুমিয়ে পড়ে। কেউ বা রাত জেগে টিভি দেখে াকে। আরো নানান কারনের প্রবাসীদের প্রেশার একটু বেশীই থাকে। আমার এক ডাক্তার মামা (মেডিসিন বিশেষজ্ঞ) বলেছেন, ওনার প্রবাসী রুগীর বেশীর ভাগই নাকি প্রেসারের। প্রবাসী ভাই-বোনদেরকে অনুরোধ করব, আপনারা নিয়মিত প্রেশার মেপে দেখবেন। আর বছরের একবার হলেও কোলেষ্টরল চেক করবেন। নিজের প্রতি অবহলো করবেন না। আপনি সুস্থ থাকলেই নিজে শান্তি পাবেন আর পরিবারকে শান্তিতে রাখতে পারবেন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares