সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি::মহাসড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশা বন্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও দুই

0 0

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি::মহাসড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশা বন্ধের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও দুই ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে রাখে মালিক শ্রমিকরা। আজ সকালে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সরাইলের বিশ্বরোড মোড়ে তারা এ কর্মসূচি পালন করে। বিক্ষুদ্ধ শ্রমিকরা গাড়ি ভাংচুর করে। এ সময় মহাসড়কের তিন দিকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। চরম দূর্ভোগে পড়ে যাত্রীরা।

অটোরিকশা শ্রমিক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, জাতীয় মহাসড়কে সরকার অটোরিকশা চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ফলে বেকার হয়ে পড়েছে স্থানীয় কয়েক হাজার শ্রমিক। বেকায়দায় পড়েছেন সর্বস্ব শেষ করে অটোরিকশা ক্রয় করা মালিকরা। গত কয়েকদিন ধরে কুট্রাপাড়া মোড় থেকে মহাসড়কের বিশ্বরোড মোড় পর্যন্ত এক কিলোমিটার সড়কে অটোরিকশা চলাচলে ছিল শিথিলতা। ফলে জেলা সদরে যাতায়তে কিছুটা স্বস্থ্যিতে ছিল সরাইল-নাসিরনগরের কয়েক হাজার মালিক শ্রমিক ও সাধারন যাত্রীরা। হঠাৎ করে গত সোমবার থেকে জেলা সদরে প্রবেশের ওই সড়কে অটোরিকশা চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। দূর্ভোগ বেড়ে যায় যাত্রীদের। ফুঁসে উঠে মালিক শ্রমিকরা।

বুধবার সকালে বিশ্বরোড সরাইল ও নাসিরনগরের মালিক শ্রমিকরা এ সড়কে অটোরিকশা বন্ধের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে পড়ে। তারা বিশ্বরোড মোড়ে ঘুরে ঘুরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। সকাল ৭টা থেকে ৯টা পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। নন্দনপুর এলাকায় যাত্রীবাহী একটি লোকাল বাস ভাংচুর করেছে শ্রমিকরা। এ সময় ঢাকা-সিলেট, কুমিল্লা-সিলেট ও চট্রগ্রাম- ময়মনসিংহ সড়কের তিনদিকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। বাধ্য হয়ে অনেক যাত্রী পায়ে হেঁটে জেলা শহরের দিকে যেতে দেখা যায়।

সদর আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর আশ্বাসের প্রেক্ষিতে অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়।

57

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares