মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস যারা অস্বিকার করে তারা দেশ ও জাতির শত্রু- মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলায় শাহ জিকরুল

0 0

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্তরে সপ্তাহ ব্যাপি মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার চতুর্থ দিনের আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় মেলা উদযাপন পরিষদ কর্তৃক অয়োজিত চতুর্থ দিনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা শাহ জিকরুল আহমেদ খোকন। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশ গ্রহন করেন, পদ্মা ওয়েল কোং লি. চট্টগ্রাম অঞ্চলের মহা ব্যবস্থাপক বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবুল বাশার, জেলা জাসদ সভাপতি এডঃ আক্তার হোসেন সাইদ, জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান শহীদ, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবর রহমান বাবুল, জেলা সিপিবির সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম, জেলা ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি এড. কাজি মাসুদ আহমেদ। সভায় সভাপতিত্ব করেন যুদ্ধকালীন বিএলএফ কমান্ডর বীরমুক্তিযোদ্ধা এড. তফছিরুল ইসলাম। সভা পরিচালনা করেন সংস্কৃতি কর্মী মনির হোসেন ও মনিরুল ইসলাম শ্রাবণ। সভায় প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লক্ষ মানুষ শহীদ হয়েছিল। ২ লক্ষ মা বোন তাদের সম্ভ্রম দিয়েছিল। বাংলার যেসমস্ত লক্ষ লক্ষ মানুষ মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহন করেছিল তারা যেনতেন কোন ব্যক্তির ইশারায় মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁিপয়ে পড়েনি। বাংলার কোটি মানুষকে যিনি স্বাধীন বাংলার স্বপ্ন দেখিয়ে ছিলেন। যার ইশারায় লক্ষ লক্ষ মানুষ যুদ্ধে জীবন বাজি রেখেছিল। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। তিনি বাঙ্গালীর অবিসংবাদী নেতা। দেশের ইতিহাসের এই সূর্যসম সত্যকে যারা অস্বিকার করে তার মূলত মুক্তিযুদ্ধকেই অস্বিকার করে। তিনি বলেন মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস যারা অস্বিকার করে তারা দেশ ও জাতির শত্রু। প্রধান অতিতি তার বক্তব্যে আরো বলেন যখন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বপ্ন তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে পূরণ হচ্ছে  তখন একটি মহল দেশের শান্তি শৃংখলা নষ্ট করতে নানা ষড়যন্ত্র করছে। তাদের সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার স্বপক্ষের শক্তি কে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। মেলায় দি আলাউদ্দিন সঙ্গিতাঙ্গনের পরিবেশনায় সঙ্গীতানুষ্ঠান ও সাহিত্য একাডেমীর পরিবেশনায় আবৃত্তি ও নাট্যানুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। মেলায় অংশ দর্শক সমাগম হয়। আগামী ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন সন্ধ্যায় মেলা চলবে। মেলায় প্রতিদিন দেশ বরণ্যে ব্যক্তিদের অংশ গ্রহনে আলোচনা সভা ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হবে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares