বিএসএফের বাধার মুখে বন্ধ থাকা রেলের কাজ অচিরেই শুরু হবে-বিজিবি মহাপরিচালক

0 0

রুবেল আহমেদ : কসবা রেলওয়ে স্টেশন পরিদর্শন শেষে বিজিবি মহাপবিচালক মেজর জেনারেল একে এম নাজমুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন-আখাউড়া-লাকসাম রেলওয়ে লাইন একটি জাতীয় পর্যায়ের প্রজেক্ট। কাসবা রেল স্টেশন ও সালদার ব্রীজ নির্মানে বিএস এফ থেকে যে বাধা এসেছে তা নিরসনে আমরা চেষ্টা করছি। কসবা ও সালদা স্টেশন বৃটিশ আমলে নির্মিত।

এতোদিন কোনো সমস্যা হয়নি এখন কেন তারা বাধা দিচ্ছে এ প্রশ্নের জবাবে মহাপরিচালক বলেন, ১৫০ গজের মধ্যে সীমান্তে অবকাঠামো তৈরিতে সীমান্তে আইনে সমস্যা। স্টেশন ও সেতু নির্মান শুরু হওয়ার মাঝপথে বিএসএফ থেকে বাধা দেয়া হলে এ কাজ বন্ধ রাখা হয়। আমি নতুন করে মহা পরিচালক হিসেবে এসেছি। আমরা অবশ্যই তা সমঝোতার মাধ্যমে শেষ করবো এবং সহসাই কাজ শুরু হবে। এ বিষয়ে আমি কাজ করছি এবং মন্ত্রনালয়গুলোও কাজ করে যাচ্ছে।

বুধবার (১ মার্চ) বিকেল তিনটায় কসবা স্টেশনে সাংবাদিকদের সংগে প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। সীমান্ত হত্যার বিষয়ে তিনি বলেন ,সীমান্ত হত্যা কারোরই কাম্য নয়। বিএসএফ এর সাথে আলোচনার মাধ্যমে সকল প্রকার ভূল বুঝাবুঝি ও সীমান্ত হত্যা আর যাতে না হয় যথাসাধ্য চেষ্টা করবো।

মাদক চোরাচালান বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মাদক কারবারী ও চোরাচালান বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে জিরো টলারেন্স। আমাদের নিকটও এ বিষয়ে কোনো ছাড় নেই। আমরা চাইনা আমাদের দেশের যুব সমাজ ধ্বংস হয়ে যাক। যে কোনো মুল্যে মাদক ব্যবসাকে রুখতে হবে। এ বিষয়ে আমার পক্ষ থেকে কঠোর নির্দেশনা রয়েছে।

এর আগে তিনি আখাউড়া স্থলবন্দর পরিদর্শন করেন। এসময় বিজিবি মহাপরিচালকের সংগে সরাইল রিজিউনাল কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো.শহিদুল ইসলাম, কুমিল্লা সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল আবুল কালাম মোঃ সামসুদ্দিন রানা, ৬০ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল আশিক হাসান উল্লাহ ও রেলওয়ে প্রকল্প পরিচালক মো.সুবক্তগিনসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares