আশুগঞ্জে শ্রমিকদের কর্মবিরতি চলছে

0 0

ডেস্ক ২৪:: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে নির্মাণাধীন ৪টি প্রকল্প ও দ্বিতীয় রেল সেতু প্রকল্পে কর্মরত  শ্রমিকরা ন্যায্য মজুরির দাবিতে বিদ্যুৎ কেন্দ্র, রেল সেতুর নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়ে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছে।

সোমবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-আশুগঞ্জ শ্রমিক সংগ্রাম ঐক্য পরিষদের ডাকে এ কর্মবিরতি পালন করছে শ্রমিকরা।

সকালে নির্মাণাধীন ৪টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও দ্বিতীয় রেল সেতু প্রকল্পে নিয়োজিত কয়েক হাজার শ্রমিক তাদের কাজ বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। মিছিলটি আশুগঞ্জ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান গেইটের সামনে থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। পরে সমাবেশে সংগঠনের আহবায়ক নিজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সদস্য সচিব তানসেন মুন্সী, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, জেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি ইদন মিয়া মিন্টু, নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের আশুগঞ্জ সভাপতি হাবিবুল্লাহ বাহার প্রমুখ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-আশুগঞ্জ শ্রমিক সংগ্রাম ঐক্য পরিষদের নিজাম উদ্দিন জানান, আশুগঞ্জে চলমান প্রায় ৫টি প্রকল্পে কয়েক হাজার দক্ষ, অদক্ষ শ্রমিক কর্মরত আছে। কিন্তু আশুগঞ্জের প্রকল্প অনুযায়ী স্থানীয় শ্রমিকদের অগ্রাধিকার না দিয়ে চাহিদার তুলনায় শতকরা ৩০ ভাগ স্থানীয় শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হয়েছে এবং বাকী শ্রমিক দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এনে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। এতে করে স্থানীয় শ্রমিকরা বেকার বসে থাকতে হচ্ছে। এ ছাড়া কর্মরত শ্রমিকদের সরকারি শ্রম আইন অনুযায়ী ন্যায্য মজুরি দেয়া হচ্ছে না। শ্রমিকরা ন্যায্য মজুরি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। দ্রুত শ্রমিকের ন্যায্য মজুরি নিশ্চিত ও সকল প্রকল্পে স্থানীয় শ্রমিকদের নিয়োগ দিতে হবে। তা না হলে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে। এ সংগঠনের সাথে জেলার ১১টি শ্রমিক সংগঠন একাত্মতা পোষন করেছেন।  

আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী নূরুল আলম জানান, শ্রমিকের ন্যায্য মজুরি নিয়ে যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে বিষয়টি সুরাহার জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও শ্রমিকদের সাথে আলোচনা হচ্ছে।   

উল্লেখ্য, দেশের বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে ব্রাক্ষণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিজস্ব উদ্যোগে ১১হাজার ১শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে ১২শ’ ২৫ মেগাওয়াটের নতুন ৪টি গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ চলছে। এর মধ্যে ৪শ’ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্প (সাউথ), ৪শ’ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্প (নর্থ), ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্প ও ২শ মেগাওয়াট মডিওলার পাওয়ার প্লান্ট রয়েছে। চলতি বছরের শেষ দিকে বড় এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। এ ছাড়া আশুগঞ্জের মেঘনা নদীর উপর দ্বিতীয় রেল সেতুর নির্মাণ কাজ চলছে। আর এসব প্রকল্পে কাজ করছে কয়েক হাজার শ্রমিক।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares