বিরোধের জের ধরে আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে ৮ জেলায় সার সরবরাহ বন্ধ

0 0

প্রতিনিধি : ট্রাক মালিক গ্রুপ ও জেলা সার সমিতির ডিলারদের মধ্যে বিরোধের জের ধরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে গত রবিবার বিকেল থেকে ৮জেলায় সার সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে ফলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, চাঁদপুর, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ ও মৌলভীবাজার জেলার ৭৭৪ জন ডিলারের মধ্যে সার সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। ৩ দিন ধরে সার সরবরাহ বন্ধ থাকায় ৮ জেলায় সার সংকটের আশংকা করছে সার ব্যবসায়ীরা।

আশুগঞ্জ সার কারখানার মহাব্যবস্থাপক প্রশাসন আনোয়ার হোসেন জানান, জেলা সার সমিতি ও ট্রাক মালিক পরে মধ্যে বিরোধের জের ধরে রবিবার বিকেল থেকে আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে কমান্ড এরিয়াভুক্ত ৮ জেলায় সার সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনকে সমোঝতার জন্য অবহিত করা হয়েছে। প্রতিদিন আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে প্রায় ১৫শ মেট্রিকটন ইউরিয়া সার কামন্ড এরিয়াভুক্ত জেলায় সরবরাহ করা হয়। জেলা সার সমিতির সাধারন সম্পাদক জালাল উদ্দিন জানান, ডিলারদের ইচ্ছে অনুযায়ী ট্রাক ভাড়া করে প্রতি ট্রাকে ১৫ মেট্রিক টন সার পরিবহণ করা হতো। কিন্তু ট্রাক মালিক সমিতির লোকজন নিজেদের ইচ্ছে মাফিক ট্রাক দিয়ে সার পরিবহণ করতে চাচ্ছে। মেনে না নেয়ায় ট্রাক মালিকরা সার পরিবহণ বন্ধ করে দেয়। গত রবিবার বিকেলে ট্রাক শ্রমিক আজিম উদ্দিন ডিলার প্রতিনিধি নাছির মিয়াকে মারধোরও করে। চলতি জানুয়ারী মাসে কারখানার কমান্ড এরিয়াভুক্ত সার ডিলারদের চাহিদা অনুযায়ী ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার বরাদ্ধ দেয়। সার সরবরাহ বন্ধ থাকায় এখন পর্যন্ত জানুয়ারী মাসের সার উত্তোলন করতে পারেনি ডিলাররা। জেলা ট্রাক মালিক পরে আশুগঞ্জ শাখার আহবায়ক মিলন শাহ জানান, প্রতি ট্রাকে ১০ মেট্রিক টন সার পরিবহণ করার জন্য ডিলারগনকে বলা হলে তারা ১৫টন করে সার পরিবহণের জন্য চাপ দেয়। সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ৭ মেট্রিক টন সার পরিবহণের কথা রয়েছে। এর অতিরিক্ত সার পরিবহন করলে মহাসড়কে পুলিশের হয়রানীর শিকার হতে হয়।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares