সরাইল মুক্ত দিবসে বিরোধ ভুলে দুই এমপি এক মঞ্চে

0 0

মোহাম্মদ মাসুদ, সরাইল থেকে:::৮ ডিসেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল হানাদার   মুক্ত দিবস।১৯৭১ সালের এ দিনে বাংলার দামাল ছেলেরা সরাইল থেকে পাক হানাদার বাহিনীর হানাদারদের সরাইল থেকে বিতাড়িত করে।সেই থেকে সরাইল মুক্ত হয়। প্রতিবারের ন্যায় এবারও দিবসটিকে স্বরন করতে সরাইল মুক্তিযোদ্বা কমান্ডের উদ্দ্যোগে ব্যাপক কমৃসূচি গ্রহন করেছে । কমৃসূচির মধ্যে রয়েছে  ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহনকারী সকল  বীরদের নামের ফলক উম্মোচন ও আলোচনা সভা ।
তবে এবারের মুক্ত দিবসের বড় বৈশিষ্ট হল ব্রাহ্মণবাড়িযা ৩ সদর আসনের এমপি র,অা,ম উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী প্রধান অতিথি ও  ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২ আসনের এমপি এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা বিশেষ অতিথি হয়ে  সকল বিভেদ ভ’লে এক মঞ্চে বসতে যাওয়াকে সরাইলের সাধারন মানুষের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।  আর দুই এমপির এক মঞ্চে আসার খবরে সরাইলে প্রতিটি মোড়ে মোড়ে তোড়ন ও ফেষ্টুনে ছেয়ে গেছে। প্রতিটি ই¦উনিয়নে আওয়ামীলীগ ও জাপার নেতা কর্মিদের মাঝে ব্যাপক সাড়া পড়েছে বলে আওয়ামীলীগ নেতা হাজী মাহফুজ আলী জানান। আলোচনা সভা জনসভায় থেকে জনসমুদ্রে পরিনত হতে পারে বলে মুক্তিযোদ্বা হাজি এডঃ আঃ  রাশেদ মনে করেন।
প্রসঙ্গত ৯ম সংসদের শেষ দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৩ সদর আসনের সাংসদ র,আম উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২ আসনের সাংসদ এডঃ জিয়াউল হক মৃধাকে কোন কিছু না জানিয়ে তার  নির্বাচনি এলাকার কিছু উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড উদ্বোধন করেন।  এনিয়ে দু এমপির মধ্যে বিরোধের জন্ম হয়। দশম  সংসদ নির্বাচনের পর আবারো জিয়াউল হক মৃধা এমপির নির্বাচনী এলাকায় ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন সাংসদ রবিউল প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২ আসনের জনগন ফুসে উঠে বিশ্ব রোডে মানববন্দন করার প্রস্তুতি নিলে উবায়দুল মোক্তাদির সমর্থকরা একই স্থানে পৃথক কর্মসূচি আহবান করে। জেলা পুলিশের পুরো টিম নেমে আসে বিশ্ব রোডে ও সরাইল। জিয়াউল হক মৃধা এমপিকে অনুরোধ করে পুলিশ প্রশাসন বিশ্বরোডের পরিবর্তে কুট্টাপাড়ায় সমাবেশ করতে দেন প্রশাসন । দু এমপির বিরোধ আরো তুঙ্গে উঠে । অবশেষে সরাইল মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সরাইল মুক্ত দিবসের  এ আয়োজনে দু এমপির এক মঞ্চে উঠাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী দেখতে পেয়ে খুবই আনন্দিত হবে বলে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার ইসমত আলী  জানান।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares