স্বামীর পরকীয়ার জেরে স্ত্রী খুন

0 0

 

প্রতিবেদক : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বামীর পরকীয়া প্রেমে বাধা দিতে গিয়ে মিনা বেগম (২৫) নামের গৃহবধূ খুন হয়েছেন। মঙ্গলবার শহরতলীর নাটাই উত্তর ইউনিয়নের ভাটপাড়া গ্রামের ফায়েজ মিয়ার বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। এদিকে এই ঘটনার পর নিহতের স্বামীসহ অন্যরা বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়েছে।

জানা যায়, কয়েক বছর পূর্বে সদর উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামের ফায়েজ মিয়ার (৩৪) সাথে পার্শ্ববর্তী নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকূট ইউনিয়নের বিদ্যাকূট গ্রামের মৃত হারুন মিয়ার মেয়ে মিনা বেগমের (২৫) বিয়ে হয়। বিয়ের পর পরই ফায়েজ মিয়া অন্য এক মেয়ের সাথে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়শই কলহ বাধতো। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে মিনা বেগমের সন্তানরা স্কুলে যাওয়ার পর তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পুনরায় ঝগড়া শুরু হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে ফায়েজ মিয়া মিনা বেগমকে মারধর করে গলাটিপে হত্যা করে। পরিস্থিতিকে অন্যদিকে চালিয়ে দিতে ফায়েজ মিয়া তার স্ত্রী মিনা বেগমকে তৎক্ষনাত জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে মিনা বেগমেকে রেখে স্বামী ফায়েজ মিয়া সুকৌশলে পালিয়ে যায়।

নিহতের ভাই বিল্লাল হোসেন জানান, ‘ফায়েজ মিয়া অন্য মেয়ের সাথে পরকীয়ায় লিপ্ত একথা মোবাইল ফোনে আমার বোন আমাকে জানিয়েছিলো। বাজার সদাই করে অন্য মহিলার বাড়িতে পাঠানোকে কেন্দ্র করে আমার বোনের সাথে ফায়েজের কলহ চলে আসছিলো বেশ কয়েকদিন ধরেই। স্থানীয় ভাটপাড়া গ্রামের ইউপি সদস্য বাসু মিয়া ঘটনাটি সালিশের মাধ্যমে শেষ করে দিবে বলে আশ্বাস দেয়। কিন্তু এসবের পরিণতি এই হবে তা আমি ভাবতেও পারিনি। সকালে আমার বোন মারা গেছে এই খবর পেয়ে আমি বাড়ি থেকে এসে পুরো ঘটনা জেনেছি।’ ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. আবদুর রব বলেন,‘লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবার মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। ফায়েজ ও তার পরিবারের লোকেরা বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়েছে।’

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares