ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ৫, আহত কমপক্ষে ৫ শতাধিক

0 0


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভয়াবহ টর্নেডোতে ১জন মহিলাসহ ৩জন নিহত ও কমপে দেড় শতাধিক আহত হয়েছে। এসময় গ্রামের কয়েক শতাধিক কাঁচা বাড়িঘর, বোরো ফসলী জমির ধান ব্যাপক নষ্ট হয়। এছাড়া জেলা কারাগারের পশ্চিম পার্শ্বের দেয়াল ধ্বসে পড়ে। এছাড়াও বিপুল পরিমান য়তি হয়েছে। বন্ধ রয়েছে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়েরক যানবাহন চলাচল। প্রত্যদর্শীরা জানায়, আজ শুক্রবার বিকেল ৫টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের বিভিন্ন স্থানে বৃহৎ আকারের শিলাবৃষ্টি হয়। এর কিছুণ পর টর্নেডোর তান্ডব শুরু হয়। সদর উপজেলার রামরাইল, মাছিহাতা, সুলতানপুর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামে ভয়াবহ টর্নেডো আঘাত হানে। এসময় কুমিা-সিলেট মহাসড়কের যানবাহনের উপর গাছ উপড়ে পড়লে একটি যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। এছাড়া বহু সিএনজিসহ বিপুল সংখ্যক গাড়ির উপর গাছ ভেঙ্গে পড়ে। এতে বাসযাত্রীরা গুরুতর আহত হয়। টর্ণেডোর আঘাতে এক মহিলাসহ ৩জন নিহত হয়েছে। গুরুতর আহত শতাধিক মানুষকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের সদর হাসপাতাল সহ শহরের বিভিন্ন কিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। টর্নেডোর সময় জেলা কারাগারের পশ্চিম পার্শ্বের দেয়াল ধ্বসে পড়েছে। টর্নেডোর ছোবলে এখন পর্যন্ত এক কারারী নিখোঁজ রয়েছে। কি পরিমান য়তি হয়েছে তা জানা যায়নি। ঘটনার পর পরই গ্রামবাসী, আইন শৃংখলা বাহিনী, ফায়ার সার্ভিস আহত নিহতদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। ঘটনার পর পরই বিদ্যুৎ সংযোগ রয়েছে ওই এলাকায়। এদিক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার টর্নেডোর ছোবলে অর্ধশত লোক আহত হয়েছে। বিধ্বস্ত হয়েছে ২ শতাধিক বাড়িঘর। ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares