জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত, মাসুম সভাপতি-রাসেল সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত

0 0

মনিরুজ্জামান পলাশ : দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর পর গত রবিবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খা পৌর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অবঃ) তাজুল ইসলাম এম.পি। জেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলন উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি এইচ.এম বদিউজ্জামান সোহাগ।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এম.পি, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট শাহআলম এম.পি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত সিকদার,জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক অ্যাডভোকেট সৈয়দ এ.কে.এম এমদাদুল বারী, পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মেজর (অবঃ) জহিরুল হক খান বীর প্রতীক।
বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি মঈন উদ্দিন মঈন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি শাহাদাত হোসেন সুজন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা ইনামুল হক সরকার, মশিউর রহমান, শেখ রাসেল, নবেন্দ্র সাহা, মোঃ সাফায়েত উল্লাহ, মোঃ আসাদুজ্জামান, মোঃ আশিকুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা জামিয়া আক্তার রুমি, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান পারভেজ, মাইনুল ইসলাম পাভেল ও রাসেল মিয়া।
সম্মেলনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অবঃ) এবি তাজুল ইসলাম এম.পি বলেন, যারা শহীদ মিনার ভাঙ্গছে, রক্তার্জিত পতাকার অবমাননা করছে, মসজিদে আগুন দিচ্ছে, আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বেগম খালেদা জিয়া সেই জামাত যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষায় চেষ্টা করছেন। তিনি বলেন, জাতীয় পতাকার অবমাননা সহ্য করবে না। তিনি রাজাকার ও যুদ্ধাপরাধীমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয় ঘোষণা করেন।
সম্মেলনে মোঃ মাসুম বিল্লাহকে সভাপতি ও  মোঃ রাসেল মিয়াকে সাধারণ সম্পাদক পদ করে আংশিক কমিটি ঘোষনা করা হয়। কমিটির অন্যান্যরা হলেন, সিনিয়র সহ- সভাপতি মোঃ আরিফুর রহমান বাপ্পী, সহ- সভাপতি ইমরানুল হক ভূঁইয়া রনি, আনিছুর রহমান রনি, আকরামুল ইসলাম আকরাম, ওয়াসিম আহমেদ রাব্বি, জামিয়া আক্তার রুমি, শাহ এনায়েত পারভেজ, মিনহাজ মামুন, জয়নাল আবেদীন ও অশেষ রায়। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ তাজুল ইসলাম আপন, মোঃ মমিন মিয়া ও ইজাজুল হক রাব্বি। সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল হোসেন রুবেল, মোঃ নুরুজ্জামান, মোঃ আরমান ভূঁইয়া ও মোঃ মহিউদ্দিন। প্রচার সম্পাদক শামীম হোসেন, দপ্তর সম্পাদক সায়েদুর রহমান, আইন বিষয়ক সম্পাদক আশরাফ রাব্বি, সমাজসেবা সম্পাদক মনির হোসেন, সহ সম্পাদক রাজিবুর রহমান ও সোহেল রানা। সদস্য পদে মোঃ আতাউর রহমান সনেট, তোফাজ্জল হোসেন তুহিন ও বায়জিদ মোস্তফা। কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন জাহেদ হোসেন পাভেল, জিয়াউল হক বাদল ও সৈয়দ আমিনুল ইসলাম সাজি। অচিরেই জেলা আওয়ামীলীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষনা করা হবে বলে জানানো হয়।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares