মাদ্রাসা ছাত্রদের কান্ড!

0 0

মাসুক হৃদয়: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী উপলে সকল সরকারি, বেসরকারি অফিসগুলোতে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের জন্য রিক্সাযোগে সরকারি প্রচার চলাকালে মাদ্রাসার ছাত্ররা জেলা তথ্য অফিসের মাইক্রোফোন ও এমপ্লিফায়ার খালে ছুড়ে ফেলে দিয়েছে। এসময় তারা জেলা তথ্য অফিসের ঘোষক, সাধারণ কর্মচারি ও রিক্সাওয়ালাকে মারধর এবং রিক্সা ভেঙ্গে ফেলে।
বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে একটায় শহরের ফকিরাপুলে মাইকে ঘোষণা দেওয়ার সময় এ হামলা চালানো হয়। শহরের কান্দিপাড়ায় অবস্থিত জামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার ছাত্ররা মিছিল সহকারে এ হামলা করে।

জেলা তথ্য অফিসের কর্মচারি আবুল বাশার জানান, কওমী ইসলামী ছাত্র ঐক্য পরিষদের ব্যানারে জামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার একদল  ছাত্র শহরে বিােভ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের মধ্যস্থলে অবস্থিত ফকিরাপুল এলাকায় তাদের রিক্সা অতিক্রম করার সময় ছাত্ররা কোন কিছু না বলেই মাইক্রোফোন ও এমপ্লিফায়ারটি টেনে হিঁচড়ে খুলে পাশের খালে ছুড়ে ফেলে দেয়। মাদাসার ছাত্ররা এসময় তিনিসহ ঘোষক শামসুল হক ও রিক্সাওয়ালা নূর ইসলামকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারে।

জেলা তথ্য কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. জহিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি আমি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে জানিয়েছি। তিনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে আমাকে জানিয়েছেন।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আজাদ ছাল্লাল বলেন, বিষয়টি আমি তথ্য কর্মকর্তার মাধ্যমে জেনেছি। ডিসি স্যারের সঙ্গে কথা বলে এ ব্যপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

প্রসঙ্গত, পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী উপলে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের নেতারা শহরে জশনে জুলুস উদযাপনের কর্মসূচী দেয়। এর প্রতিবাদে জেলা কওমী ইসলামী ছাত্র ঐক্য পরিষদের ব্যানারে জামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার ছাত্ররা লাঠি-সোটা নিয়ে শহরে বিােভ মিছিল করে। তারা যে কোন মূল্যে সুন্নাত ওয়াল জামাতের কর্মসূচী ভন্ডুলের ঘোষণা দেয়।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares