ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নোঙরের নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ, সভাপতিসহ ৪ জন আজীবনের জন্য বহিস্কার

0 1


সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গ করার দায়ে নোঙর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ নিবার্হি সদস্য বহিস্কার করেছে কেন্দ্রীয় কমিটি। নোঙরের নিজস্ব ওয়েবসাইটে এ বিষয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে কর্তৃপক্ষ।

সংবাদটিতে বলা হয়েছে, নদী ও প্রাণ-প্রকৃতি সুরক্ষা সামাজিক সংগঠন নোঙর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ কতিপয় সদস্যের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গ, ব্যাক্তি স্বার্থে সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত থাকাসহ যোগ্য সদস্যদের বঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও জেলা শহরের খাল রক্ষা করার আন্দোলনের নামে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে গণধোলাইর শিকার হওয়াতে সংগঠনের ভাবমূর্তি নষ্ট করে সংগঠনকে বিতর্কিত ও অকার্যকর করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

এ ছাড়াও কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রেরিত ই-মেইলের জবাব না দিয়ে স্ব-পদে বহাল থেকে সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপ অব্যাহত রাখার কারনে শামীম আহমেদ, খালেদা মুন্নি, সোহেল আহাদ, সুশান্ত পাল কে জেলা কমিটির সকল পদ ও কর্মকান্ড থেকে অপসারণ করার সিদ্ধান্ত নীতিগত ভাবে গ্রহণ করে কেন্দ্রীয় কমিটি।

গত ১১ মার্চ ২০২৩, শনিবার, জেলা সদরের স্থানীয় বালিকা বিদ্যায় মিলনায়তনে নোঙর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ২০২৩ তারিখে সম্মেলনে উত্থাপিত মোট বাজেটের ৮৩ হাজার টাকার হিসাবের আর্থিক অনিয় উঠে আসে। এমতাবস্থায় প্রাপ্ত তদন্ত ও তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে নোঙর কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যালয়ে নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে অদ্য ৪ এপ্রিল ২০২৩, মঙ্গলবার এক জরুরী সভায় গৃহিত সিদ্ধান্ত মোতাবেক উপরোক্ত গুরুতর অভিযোগের দায়ে শামীম আহমেদ (জেলা শাখার সভাপতি), খালেদা মুন্নি (সাধারণ সম্পাদক), সোহেল আহাদ (নির্বাহি সদস্য), এবং সাধারণ সদস্য সুশান্ত পাল কে গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ৯ এর (ক), (খ), (ঞ), (ণ), (ত), (থ), (ধ) ধারা অনুযায়ী ই-মেইলের মাধ্যমে নোঙর-ব্রাহ্মলবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, নিবার্হি সদস্য এবং সাধারণ সদস্য পদ থেকে আজীবনের জন্য বহিস্কার করা সিদ্ধান্ত চুরান্ত হয়।

উল্লেখ্য যে. ইতিমধ্যে গত ২ এপ্রিল ২০২৩, রবিবার বিকাল ৩ ঘটিকায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ট্যাঙ্কেরপাড় অস্থায়ী কার্যালয়ে সকল সদস্যের উপস্থিতিতে এক বর্ধিত সভার মাধ্যমে ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত নবগঠিত কমিটির আহবায়ক কামরুজ্জামান খান টিটু এবং সদস্য সচিব হিসাবে সোহেল খান মনোনীত হয়েছেন। নবগঠিত আহবায়ক কমিটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সাংগঠনিক, আঞ্চলিক ও কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর আওতায় এবং নির্দেশ মোতাবেক নিষ্ঠার সাথে সকল দ্বায়িত্ব পালন করবেন।পাশাপাশি নবগঠিত জেলা আহবায়ক কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ৯০ দিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটি গঠনের জন্য পূর্ণ দ্বায়িত্ব পালন করবেন।

নোঙর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নবগঠিত নোঙর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার আহবায়ক কমিটির প্রস্তাব অনুমোদন করে সকলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares