পৌরসভার “উন্নয়ন ও ঐতিহ্য” শীর্ষক স্মরণিকার প্রকাশনা উৎসব

0 0

br 20-9-15 2

প্রধানমন্ত্রীর সাবেক একান্ত সচিব, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কার্যর্নিবাহী কমিটির অন্যতম নেতা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন, শিক্ষা-সাহিত্য-সংস্কৃতি ও শিল্পকলার তীর্থ ভূমি হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সুনাম পুরো বিশ্ব জুড়ে। বাংলাদেশের প্রাচীনতম পৌরসভা হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার সুনাম-ঐতিহ্য বহুকালের। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এসে দেশের পৌরসভারগুলোর জন্য জনবান্ধব নীতি ও প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দের ফলে দেশের অন্যান্য পৌরসভার ন্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার উন্নয়ন ও গৌরব দিন দিন আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে।

br 20-9-15

তিনি শনিবার বিকালে সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার “উন্নয়ন ও ঐতিহ্য” শীর্ষক স্মরণিকার প্রকাশনা উৎসব উপলক্ষে মোড়ক উম্মোচন, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তিতায় উপরোক্ত কথা বলেন।

বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী এমপি আরো বলেন, আমাদের আন্তরিক প্রচেষ্টা ও পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে বর্তমান পৌর পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভাকে একটি পরিচ্ছন্ন, আধুনিক ও আগামী প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য নগরীতে রূপান্তরিতে করতে নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, একটি সুন্দর পৌরসভা গঠনের জন্য পৌর পরিষদের পাশাপাশি নাগরিকদেরও বেশ কিছু দায়িত্ব রয়েছে। নাগরিকগণ তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন না করলে কোন উন্নয়ন কর্মকান্ডেই সফলতার মুখ দেখবে না। তিনি বলেন নাগরিক সচেতনতা বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে বর্তমান পৌর পরিষদ তাদের উন্নয়ন কর্মকান্ডের বর্ণনা ও পৌরসভার ইতিহাস ঐতিহ্যের সংমিশ্রণে যে স্মরণিকা প্রকাশ করেছেন তা একটি মহর্তী উদ্যোগ। আমি এ মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক ড. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার। আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি সভাপতি মোঃ আজিজুল হক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব সভাপতি, সৈয়দ মিজানুর রেজা।

সভায় মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার বয়স ১৪৭ বছর পার হয়েছে। ১৪৭ বছর ধরে পৌরসভার উন্নয়ন কাজ চলমান আছে এবং দিন দিন এর জনসংখ্যা যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে, বৃদ্ধি ঘরবাড়ি, রাস্তা-ঘাট। তাই দিন দিন পৌরসভার উন্নয়ন কর্মকান্ডের চাহিদাও ক্রমবর্ধমান ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ক্রমবর্ধমান চাহিদার প্রতি লক্ষ রেখে আমি এই পৌরসভাকে একটি আধুনিক, পরিচ্ছন্ন, সুন্দর, আগামী প্রজম্মের জন্য একটি বাসযোগ্য নগরী তৈরী করতে নিরলস ভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। এই জন্য পৌরবাসীদেরক সহযোগিতা প্রয়োজন। তিনি বলেন পৌরবাসীকে পৌর সম্পদ রক্ষণা-বেক্ষণ করতে হবে। শহরের পরিচ্ছন্নতা রক্ষা করা, নিয়মিত পৌরকর, পানির বিল পরিশোধ করা সহ যাবতীয় নাগরিক দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করতে হবে। অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দেরকে ক্রেষ্ট প্রদানে সম্মনিত করা হয়। পরে বনার্ঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন মনিরুল ইসলাম শ্রাবণ।

অনুষ্ঠানে সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক বৃন্দ এবং পৌরসভার কাউন্সিলর সহ বিপুল পরিমান দশর্কবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares