কান্দিপাড়ায় গোলাগুলির ঘটনায় ৯৫জনকে আসামী করে বিস্ফোরণ আইনে মামলা

0 2

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে দু’গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলি এবং ককটেল বিস্ফোরনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। সদর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক শ্রীবাস চন্দ্র দাশ বাদী হয়ে রবিবার দুপুরে ৯০-৯৫কে আসামী করে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার আসামীদের মধ্যে বিষু মিয়া (১৯), পিতা-কবির ইসলাম, মাতা-মনোয়ারা, সাং-শিমরাইলকান্দি, অনিক মিয়া (১৯), পিতা-শাহজাহান মিয়া, মাতা-হেলেনা বেগম, সাং-শিমরাইলকান্দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার করেছে।

মামলায় বাদী উল্লেখ করেছেন, কান্দিপাড়া মায়মলহাটি গামী পাকা রাস্তার উপরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক ফুজায়েল চৌধুরীর গ্রুপ ও নতুন ঘোষিত ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির আহ্বায়ক ইব্রাহীম আহম্মেদ শাহীন এর গ্রুপ এর মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরন ও গুলি বর্ষনের ঘটনা ঘটছে। সংবাদ পেয়ে আমি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করিয়া নির্দেশে ক্রমে সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ ১০/০৬/২০২৩ইং তারিখ রাত অনুমান ২১.৪৫ ঘটিকার সময় ঘটনাস্থল ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানাধীন পৌরসভাস্থ জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুসিয়া মাদ্রাসার দক্ষিন পশ্চিম পার্শ্বে কান্দিপাড়া মায়মলহাটি গামী পাকা রাস্তার উপরে উপস্থিত হইয়া দেখিতে পাই যে, উল্লেখিত বিবাদমান দুইটি গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরন ও গুলি বর্ষনসহ ঝটিকা মিছিল এবং গাড়ী ভাংচুর, দাঙ্গা হাঙ্গামা করিয়া এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করিতেছে এবং ৯০/৯৫ জন উশৃঙ্খল বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা লাঠি, ককটেল, রামদা, ইট পাথরসহ বিভিন্ন প্রকার অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করিতেছে।

শান্তি শৃংখলা রক্ষা ও জানমালের নিরাপত্তা বিধান এবং সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি নিয়েন্ত্রনে আনার লক্ষ্যে উভয় পক্ষকে শান্ত হওয়ার আহ্বান করলেও তারা পুলিশকে লক্ষ্য করিয়া ককটেল বিস্ফোরক ও গুলি বর্ষনের ঘটনা ঘটায়। সংবাদ পেয়ে আরও অতিরিক্ত অফিসার ও ফোর্স ঘটনাস্থলে উপস্থিত হইয়া আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার লক্ষ্যে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালান। উশৃঙ্খল বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা আমাদের বাধা নিষেধ অমান্য করিয়া রাস্তার উপরে ককটেল বিস্ফোরন, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও গুলি বর্ষনের ঘটনা ঘটাইয়া জনমণে আতংক সৃষ্টিসহ যান চলাচলে বাধা প্রদান করে থাকে। একপর্যায়ে আসামীরা আমাদেরকে লক্ষ্য করিয়া ইট পাটকেল ও ককটেল ছুঁড়ে বিস্ফোরন ঘটায়।

একপর্যায়ে উল্লেখিত উশৃঙ্খল আসামীরাসহ অজ্ঞাতনামা আসামীরা আরো মারমুখি হয়ে পুলিশকে কর্তব্য কাজে বাধা প্রদান করিয়া পুলিশের বৈধ নির্দেশ অমান্য করিয়া পুলিশের উপর ককটেল নিক্ষেপ করিলে কিছু ককটেল বিস্ফরিত হয় এবং অবশিষ্ট ০৪টি ককটেল অবিস্ফোরিত অবস্থায় রাস্তার উপর পড়ে থাকে। অফিসার ইনচার্জ মহোদয়ের নেতৃত্বে আমরা সকল অফিসার ফোর্স আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করিতে সক্ষম হই।

ঘটনাস্থল হইতে আমরা সংগীয় অফিসার ও ফোর্সসহ উক্ত ধৃত আসামীদেরকে আটক করিতে সক্ষম হই এবং অন্যান্য এজাহারনামীয় আসামীসহ অজ্ঞাতনামা ৬০/৬৫ জন আসামী দৌড়াইয়া পালাইয়া যায়।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares