আমি বিমোহিত-আবেগ তাড়িত-আল মামুন সরকার

0 0

mamun 5-10-15

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য,ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি,বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন,বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা আল মামুন সরকারের জাতীসংঘের অধিবেশনে যোগদান শেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রত্যার্তনে যে গণসংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছে তাকে কেন্দ্র আজ এ শহর আনন্দের জনপদে পরিনত হয়েছে।আল মামুন সরকারের প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী আজ যে ভালোবাসা,সমর্থন দেখিয়েছে তা ইতিহাস হয়ে থাকবে।এমন স্বত:স্ফূর্ত সাড়া কোনো জননেতাকে কেন্দ্র আর আমি দেখিনি।আজ আল মামুন সরকারকে সংবর্ধনা দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী প্রকারান্তরে প্রধানমন্ত্রী প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনাকেই সংবর্ধনা দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন,আগামীতে যারা জনসমর্থনে,রাজনৈতিক কাজে বেশী এগিয়ে থাকবে তাকেই পৌর নির্বাচনে মনোনয়ন দেবে জেলা আওয়ামীলীগ।দল যাকে মনোনয়ন দেবে ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা তাকে নিয়েই মাঠে নামবো।আল মামুন সরকার আজ মেয়র,এমপি না হতে পারেন তবে আগামীতে হবেন না তা কেউ বলতে পারবে না।

তিনি আরো বলেন,শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে সেভাবে আমরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আওয়ামীলীগকে এগিয়ে নিতে চেষ্টা করবো।তিনি সোমবার সন্ধায় জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফর সঙ্গী হিসাবে জাতি সংঘের সাধারন অধিবেশনে যোগদান শেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে তাকে দেয়া গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

এসময় সংবর্ধনার জবাবে জননেতা আল মামুন সরকার বলেন,আমি মন্ত্রী-এমপি না হয়েও যে বিশাল সংবর্ধনা পেয়েছি তা আমার জন্য সর্বোচ্ছ সম্মাণ।এ সংবর্ধনা আমাকে আমৃত্যু ঋণী করেছে।রাজনীতিতে আমার চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই।এখন আমি চেষ্টা করবো ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীকে নতুন করে কিছু দিতে।তিনি আরো বলেন,আমি আর কোনোদিন এমপি-মেয়র প্রার্থী হবো না।তিনি বলেন,বিশ্বনেতাদের সম্মেলনে আমাকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা মর্যাদায় যোগ দেয়ার সুযোগ করে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীকেই সম্মানিত করেছেন।আজ আমার এ সংবর্ধনায় আমি বিমোহিত-আননন্দিত হয়েছি।আজকের ভালোবাসা আমাকে উদ্বেলিত-আবেগ তাড়িত করেছে।আমাকে জাতি সংঘের অধিবেশনে যোগদানের বিরল সম্মান দেয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে গভীর শ্রদ্ধা জানাই।এ কাজে আমাকে সর্বোত সহায়তা দিয়ে,আমার কাজে কর্মে সমর্থন দিয়ে আমাকে এগিয়ে দেয়ায় জননেতা উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর প্রতি হৃদয় নিংড়ানো শ্রদ্ধা।

জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি পৌর মেয়র হেলাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা জাসদ সভাপতি এড.আখতার হোসেন সাঈদ,জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এড.কাজী মাসুদ আহমেদ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন গণসংবর্ধনা কমিটির আহবায়ক ও জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু ও প্রচার সম্পাদক গণসংবর্ধনা কমিটির সদস্য সচিব সৈয়দ নজরুল ইসলাম।

জননেতা আল মামুন সরকারকে জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপির নেতৃত্বে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদানের মধ্য দিয়ে সংবর্ধনা শুরু হয়।

এসময় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠন,বিভিন্ন সামাজিক,রাজনৈতিক,সাংস্কৃতিক,নাগরিক সংগঠন,বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান,নারী সংগঠন,এনজিও,স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান সহ দুই শতাধিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

জননেতা আল মামুন সরকারের গণসংবর্ধনা উপলক্ষে সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর ছিলো উৎসবের নগরী।দুপুরের পর থেকেই বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা-সংগঠন থেকে কয়েক হাজার নেতাকর্মী বাদ্য-বাজনা-ব্যানার ফেস্টুন সহ মিছিল নিয়ে সংবর্ধনায় যোগ দেয়।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

Shares